ঢাকা, শুক্রবার   ২০ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৯

দ্য সাইলেন্স অফ দ্য সাইরেনস

সাহিত্য ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:০২, ১০ মে ২০২২  

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

অপর্যাপ্ত ও শিশুসুলভ ব্যবস্থাও যে কাউকে ধ্বংসের হাত হতে রক্ষা করতে পারে নিচের গল্পটি তারই প্রমাণঃ নিজেকে সাইরেনদের থেকে রক্ষা করার জন্যে ইউলিসেস তার কান দুটো মোম দিয়ে বন্ধ করে দিলো এবং নিজেকে জাহাজের মাস্তুলের সাথে শক্ত করে বাঁধল। তার আগের ভ্রমণকারীরাও একই কাজ করতে পারত (শুধুমাত্র দূর থেকে সাইরেনরা যাদেরকে মোহগ্রস্ত করেছিল তারা ছাড়া)। কিন্তু তারা তা করেনি একারণে যে, পুরো জগতই জানত সাইরেনদের বিরুদ্ধে এমন ব্যবস্থা কাজে  দেয় না।

কারণ, সাইরেনদের গান সবকিছুকে ভেদ করতে এবং যাদেরকে তারা প্রলুব্ধ করত, তাদের কামনা বাসনা শৃঙ্খল ও মাস্তুলের বন্ধনের চেয়েও শক্তিশালী বন্ধনকে ছিঁড়ে ফেলতে সমর্থ ছিল। কিন্তু ইউলিসেস এভাবে চিন্তা করল না, যদিও সে এ সম্পর্কে সম্ভবত আগেই শুনেছিল। সে সামান্যকিছু মোম ও শৃংখলের ওপরে বিশ্বাস স্থাপন করল এবং নিজের কৌশল নিয়ে সন্তুষ্টচিত্তে সাইরেনদেরকে প্রতিহত করতে যাত্রা শুরু করল।

কিন্তু সাইরেনদের কাছে গানের চেয়েও ভয়ঙ্কর অস্ত্র ছিল। সেটির নাম  নীরবতা। যদিও এ বিষয়ে কারও পূর্ব অভিজ্ঞতা ছিল না, তথাপি সবাই ভাবত যে, কেউ হয়ত সাইরেনদের গানকে পাশ কাটিয়ে যেতে সমর্থ হতে পারে, তবে তাদের নীরবতাকে অতিক্রম করে যাওয়া কারও পক্ষেই সম্ভব নয়। এবং তারা নিশ্চিতভাবে বিশ্বাস করত যে, পার্থিব কোনো শক্তিরই সামর্থ নেই সাইরেনদের প্রতিহত করার।

এরপর ইউলিসেস যখন সাইরেনদের মুখোমুখি হলো, তখন তারা গান গাইল না। সম্ভবত তারা ভাবল যে তাদের এই শত্রুকে কেবল তাদের নীরবতা দিয়েই ধ্বংস করা সম্ভব। অথবা তারা ইউলিসেসের মুখের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে গান গাইতে ভুলে গেল, যে সেই মুহূর্তে মোম ও শৃংখল ছাড়া আর কিছুর কথাই ভাবছিল না।

আসলে ইউলিসেস তাদের নীরবতাকেও শুনতে পাচ্ছিল না। সে ভাবল যে, সাইরেনরা গান গাচ্ছে, কিন্তু সে শুনতে পাচ্ছে না। কিছু কিছু সময়ে সে দেখতে পেল যে, সাইরেনদের গলা উঠানামা করছে, বুক ফুলে যাচ্ছে, চোখ অশ্রুতে ভরে যাচ্ছে এবং  ঠোঁটগুলো আধোভাবে খুলে যাচ্ছে। কিন্তু এগুলোকে ইউলিসেস ভাবল প্রবাহিত বাতাসের কাজ, যার শব্দকেও সে শুনতে পেল না। ফলে যখন সে দূরে তার দৃষ্টিকে নিবদ্ধ করল, তখন কাছের সবকিছুই দৃষ্টির সামনে থেকে মিলিয়ে গেল। এমনকি সাইরেনরাও তার দৃষ্টিরা সামনে থেকে হারিয়ে গেল। তারা তার সবচেয়ে কাছে থাকলেও তাদের সম্পর্কে আর কিছুই সে জানতে পারল না।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়