ঢাকা, শনিবার   ১৩ জুলাই ২০২৪ ||  আষাঢ় ২৮ ১৪৩১

প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর আগমন নিয়ে বেড়েছে গুজবকারীদের ষড়যন্ত্র

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৭:২৫, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ

দেশে আসছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। দ্বিপক্ষীয় সফরে ১০ সেপ্টেম্বর প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁর আসা নিয়ে এরই৫ মধ্যে ষড়যন্ত্র শুরু করে দিয়েছে দুষ্কৃতিকারীরা। ষড়যন্ত্রকারীদের মূলত দেশের এমন অর্জন পছন্দ হচ্ছে না। আর এ কারণে ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর বাংলাদেশে আসা নিয়ে তারা বিভিন্ন বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছেন।

এ প্রসঙ্গে রাজনৈতিক বিশ্লেষক বিভুরঞ্জন সরকার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে বাংলাদেশ সফর করছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট। তার সফর সঙ্গীদের মধ্যে থাকছেন মিনিস্টার অব ইউরোপ অ্যান্ড ফরেন অ্যাফেয়ার্স ক্যাথরিক কোলোনা। বাংলাদেশ সফরকালে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি জাদুঘরে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। সরকারপ্রধানের কার্যালয়ে একটি শীর্ষ বৈঠকে মিলিত হবেন প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ। প্রধানমন্ত্রীর আয়োজনে ভোজসভায় যোগ দেবেন তিনি। দুই শীর্ষ নেতা দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর এবং একটি যৌথ প্রেস ব্রিফিং করবেন। এটি বাংলাদেশের জন্য বিরাট অর্জন। দেশের এমন অর্জনকে স্বাগত না জানিয়ে উল্টো এ বিষয়ে গুজব ছড়াচ্ছে এক দল ষড়যন্ত্রকারী। বিষয়টি দুঃখজনক।

বিভুরঞ্জন আরো বলেন, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের বাংলাদেশ সফর দুই দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও নতুন উচ্চতায় উন্নীত করবে। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি দ্রুতবেগে বাড়ছে। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের সফরের মাধ্যমে সম্পর্ক বহুমুখী ও গভীর করার একটি সুযোগ তৈরি হবে। জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে বাংলাদেশ ও ফ্রান্স একসঙ্গে কাজ করছে। কারণ, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বাংলাদেশ আশাজনক অবস্থানে নেই। ফ্রান্সের সঙ্গে মিলে দেশের জলবায়ুর মাত্রা ঠিক রাখতে একসঙ্গে ভবিষ্যতে কাজ করা হবে। প্রতিটি ক্ষেত্রেই বিষয়টি ইতিবাচক। কিন্তু এ বিষয় নিয়ে যারা ষড়যন্ত্র করছেন, তারা নিসঃন্দেহে দেশ বিরোধী শক্তি। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা এখন সময়ের দাবি।

বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে অপর এক রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, একটি পক্ষ দেশের প্রতিটি সু-সংবাদের মধ্যে গুজব ছড়িয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার চেষ্টা করছে। প্রতিটি বিষয় ষড়যন্ত্র করে সফল না হওয়ার কারণে বিরোধী শক্তি দেশের মানুষের সামনে হাস্যকর বস্তুতে পরিণত হয়েছে। দুর্নীতির সঙ্গে সঙ্গে মানুষের সামনে এমন গুজব ছড়ানোর কারণে বিগত ১৫ বছর ধরে তারা ক্ষমতার বাইরে। এমন চলতে থাকলে আগামী ২০ বছরেও ক্ষমতায় আসতে পারবে না তারা।

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
সর্বশেষ
জনপ্রিয়