ঢাকা, শনিবার   ২৬ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রাহায়ণ ১২ ১৪২৯

ভাঙা পায়ের চিকিৎসা করাতে একাই হাসপাতালে এলো বিড়াল

ফিচার ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:২২, ২৪ নভেম্বর ২০২২  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মানুষ অসুস্থ হলে চিকিৎসা গ্রহণের জন্য হাসপাতালে ছুটে যান। মানুষের কাছাকাছি থাকা একটি প্রাণী ঠিক এই কাজটিই করল। প্রাণীটির নাম ‘বিড়াল’। সাদাকালো বিড়ালটি রীতিমত একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করল।

বিড়ালটি খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাসপাতাল চত্বরে ঘুরে বেড়াচ্ছি। ইতিউতি চাইছিল। দেখে বোঝা যাচ্ছিল, কিছু খুঁজছে বা সাহায্য চাইছে। সিসিটিভিতে বিষয়টি দেখে কৌতূহল তৈরি হয় এক নার্সের। তিনি বিড়ালটির কাছে যান। তারপর কোলে তুলে নিয়ে বুঝতে পারেন, বিড়ালটির পায়ে কোনো সমস্যা রয়েছে। 

পরীক্ষা করে দেখেন, বিড়ালটির ঐ পা-টি ভেঙে গিয়েছে। ওষুধপত্র দেওয়ার পাশাপাশি বিড়ালটির হাঁটতে যাতে তেমন কোনো অসুবিধা না হয়, সেই ব্যবস্থাও করেন ঐ নার্স। বিড়ালটিকে চেয়ারে বসিয়ে তার পায়ে বেঁধে দেন একটি ‘মেডিকেটেড’ লোহার রড। এই ভিডিয়োই পরে সমাজমাধ্যমে পোস্ট করা হয়। তার পর সেটা হয়ে যায় ভাইরাল। প্রচুর মানুষ তা দেখে ওই নার্সের প্রশংসা করেছেন। বাহবা জানিয়েছেন বিড়ালটির বুদ্ধিরও।

তুরস্কের একটি হাসপাতালে সম্প্রতি এই ঘটনাটি ঘটেছে। ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে, আহত একটি সাদা-কালো বিড়াল ঐ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ঘুরে বেড়াচ্ছে। খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাঁটছে সে। হঠাৎ এক নার্স বিড়ালটির কাছে এগিয়ে আসেন। ভিডিয়োর পরের অংশে দেখা গিয়েছে, বিড়ালটি একটি চেয়ারে বসে আছে।  ঐ নার্স তার চিকিৎসা করছেন। ততভন শহরের বিটলিস জেলার ঐ হাসপাতালের এক কর্মী এই ভিডিওটি সমাজমাধ্যমে পোস্ট করেন।

জানা গেছে, ঐ নার্সের নাম আবুজার ওজদেমির। তিনি বলেন ‘আমি কাজ করছিলাম। সেই সময় সিসিটিভিতে দেখি, একটি বিড়াল খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাসপাতালে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমি তার প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করি। এরপর বিড়ালটি নিজেই চলে যায়। কয়েক দিন পর বিড়ালটি নিজেই এসেছিল। মনে হয় আর এক বার তার পা পরীক্ষা করানোর জন্য।’

বিড়ালটি কোথা থেকে এসেছিল, কোথায় গিয়েছিল, তা যদিও জানা যায়নি। হাসপাতালের কর্মীরা বিড়ালটির নাম রেখেছেন ডাভসো। জানা গিয়েছে, এর আগে ওই হাসপাতালে একটি বিড়াল ছিল। পরে সে মারা যায়। তার নামও ছিল ডাভসো। আপাতত এই ডাভসোর ভিডিয়োতেই মজে সমাজমাধ্যম।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়